মুদিত নয়নে নিথর আমি, পৃথিবী গেছে মরে
চোখ খুলতেই পূনঃজন্মের উৎসব, মেতে উঠে সব
কেবলই তুমি কোথাও নেই, হারিয়ে গেছো অগোচরে
মনে হয় নিছক স্বপ্ন তুমি যাকে গড়েছিলাম আমার চিন্তাজুড়ে।
রঙ জাগে, তারা জাগে, সবাই যূগল নৃত্য করে
আমার অন্তস্থ কেবলই শাসন করে অন্ধকারেরা সব
আবার চক্ষুযূগল বুঁজে দেখি, পৃথিবী গেছে মরে
মনে হয় নিছক স্বপ্ন তুমি যাকে গড়েছিলাম আমার চিন্তাজুড়ে।

আমার চিন্তা জুড়ে কেবলই এক স্বপ্ন ঘুরে
একটি ফুলেল বিছানা, এক আধখাওয়া চাঁদ
আধশোয়া আমি জাদুমুগ্ধ, বিপর্যস্ত তার উন্মত্ত চুম্বনে;
জ্যোৎস্নাহত আমি, এহেন সার্বভৌম অন্ধকারে
আকাশের উর্ধাঙ্গবসন খুলতেই ধেয়ে আসে স্নেহ নিখাদ
সরে যায় দোযখের তেজ, শয়তান ঝাঁক পালায় সুদূর বনে।

মুদিত নয়নে ঘোরগ্রস্থ আমি, পৃথিবী যায়নি মরে
মনে হয় বাস্তব তুমি যাকে গড়েছিলাম আমার চিন্তা জুড়ে।

মনে পড়ে যায় প্রতিশ্রুতি যা ছিলো নিখাদ কড়কড়ে
অথচ বুড়িয়ে যাচ্ছি দেখো সময় প্রবাহের টানে বিষময় বাতাসে
তুমি ফিরে আসো যেভাবে গড়েছিলাম আমার স্বপ্নের ভিতরে;
আহা! উচিত ছিল কি কোকিল কে ভালোবাসা এমন করে?
অনন্ত বসন্তকালে ওরা একবার ঠিকই ফিরে আসে
হয়তো  তোমাকে গড়েছিলাম আমার চিন্তা জুড়ে স্বপ্নের ভিতরে।