আকাশের দিকে থাকিয়ে,ভুলে যায় আবারও
কেনো এত পিছুটান,দুনিয়ার মায়াজাল
হালাল,হারাম না চিনে,খেয়ে ফেলি খাবারও!
নিজেরে নিজে,মানুষ বলো,অথচ কাজ কর্মে নাই
এর ক্ষতি,ওর ক্ষতি,করে করে,মনের শান্তি চাও।
গাঁজা খেয়ে গাঁজাখোর,হয়ে বসে আছো
নেশার অমানবিক বিস্তার,থেকে সবাই বাঁচো।
ভালো বলা মানুষ গুলো,আজ ভালো নেই
খারাপের ছায়াতলে,কেনো যোগ দেই?
ধর্ম,কর্ম,ভুলে গিয়ে আমরা,মানুষ হয়ে মানুষের
তুলে ফেলি চামড়া।
দুর্নীতি করে করে,বাড়িয়েছো ভুড়ি
সরকারি খাত থেকে,টাকা করো চুরি।
জালেম আজ ঘুরে ফিরে,আলেম সমাজ বন্দী
বাঘ আর ছাগলের,নেই কোনো সন্ধী।
হিংসা,বিদ্বেষ,আর কত ছড়াবে
অকারণে দাঙ্গায়,কেনো তুমি জড়াবে।
কবি আমি ছবি না,কবিতায় রক্ত,
বিদ্রোহ স্রোত আমি,নজরুলের ভক্ত।
হত্যা ধর্ষন,চলে কত ঘুম,মাঝে মাঝে শিরোনামে
ফেটে যায় বুম।
খাল বিল নদীর পাড়ে,অবৈধ বসতি,
ধর্ষনে হেরে যাওয়া,মেয়েটা নাকি,অসতি?
বিধবাকে বিয়ে করো,কেনো ধর্ষিতাকে না
সমাজের এই রীতি,আমি মানি না!
সমাজকে বদলাতে,শিক্ষার প্রয়োজন
ছন্দের তালে তালে,আমার এ আয়োজন।