কবিতা লিখতে বসেছে কবি জান কি কবিতা তুমি
তোমার কবিতা কাঁদাবে প্রিয়াকে কুম্ভিরাশ্রু ভুলি।
কবি তুমি হবে কেঁদেছ কখনো নির্ঘুম নিশিরাত
সুনসান পথ পাড়ি দিয়ে আন সোনালির সুপ্রভাত।
খুলে দিয়েছিলে নিজের বসন রিক্ত হাতের পাশে
বৃষ্টিস্নাত রাত বয়ে গেছে নাই কেউ আশপাশে।


ক্ষুধার জ্বালায় নোংরা শরীর দুহাতে জড়ায়ে ধরি
স্নেহ বানে করেছিলে ছোট শিশুটি আপন করি।
ওরে কবি ভাই কবরে ঘুমায় বেশুমার নারি-নর
দোয়া কর ভাই কলমে তোমার হবেনা স্বার্থপর।
তোমার জন্য অপেক্ষা করে বন্ধুরা সীমাহীন
ভুলে যেওনা তারাই ছিলো আশেপাশে একদিন।


কবিদের লিখা কবিতা কখনো নোয়াবে তোমার শির
শাসনকারী কর্তৃত্ববাদী স্বৈরাচারের তীর।
রক্ত চোখে ভীত কম্পিত কবির নাই যে মানা
আসুক না যত ঘূর্ণিঝড়ের ধূলিধূসরিত ফনা।
কবি হবে তবে বজ্রমুঠিতে গ্রাস কর হাতিয়ার
ভেংগে ফেল যত অত্যাচারির আস্তানা ছারখার।
মুক্ত কর দুনিয়ার যত মজলুম মুসাফির
রাঙিয়ে তোল বনি আদমের সমাজটা শান্তির।


কেন তুমি হবে চাটুকার কবি চাটবে মাথার তেল
পাবেনা জীবনে সম্মান তুমি লাগ ভেল্কি খেল।
কবিরা হবে প্রেমে ভরপুর মানব প্রেমের নদী
পদ্মা শুকাবে, মেঘনা শুকাবে কবি রবে নিরবধি।
ধুলায় মিশবে রাজার বংশ নামহীন হবে দেশ।
চুপ হয়ে গেছি আর লিখবোনা আমার কবিতা শেষ।।


(শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৯ রমজান ১৪৪০)