★★★‘মেঘে ঢাকা বসন্ত’★★★
                                                                              
ফাল্গুনের এক বিকেলে খোলা জানালায় বসে,
খানিকটা নিরবতায় আচ্ছন্ন থেকে।
তোমার শূন্যতা বুকের মধ্যে অনুভব করি বারবার,
প্রহর গুনতে গুনতে না পাওয়ার শিহরন করে তোলপাড়।


হিমেল হাওয়ায় মুগ্ধ হয়ে খুঁজতে থাকি তোমায়
কখনো বকুল কখনো কৃষ্ণচুড়ার ছায়ায়।
যুগ যুগ অপেক্ষায় থেকে থেকে দেখেছি কত স্বপ্ন
সারা দিন অনাহরে অর্ধাহারে কাটিয়াছি, খাইনি কোন অন্ন।


নীল আকাশটার বুকে এক ঝাক মেঘের মেলায়,
খুঁজেছি তোমায় সকাল দুপুর সন্ধ্যা বেলায়।
অপেক্ষার আঁধার ঘুঁচবে, ফিরে আসবে তুমি নির্মল বাতাস হয়ে,
ঝরবে পূর্নিমার রাতে, ভিজবে মাটি প্রবল বর্ষনে।


গোধুলী লগ্নে আলো আঁধারের অন্ধকারে,
অনুভবে যখন স্মৃতির ডাইরীর কথা মনে পড়ে।
তোমার দেওয়া লাল গোলাপের পাপড়ি গুলো,
এখনও যতনে রেখেছি,ডায়রির পাতার সঙ্গোপনে।


তুমি আসবে বলে খুঁজে বেড়াই শান্ত নদীর পাল তোলা নৌকায় ,
তীরে ভিড়ে আমায় পাবে তুমি অনুরাগের লাল গালিচায়।
তুমি আসবে বলে খুঁজে বেড়াই নির্জন বন বিথীর সবুজ উদ্যানে,
আমার উষ্ণতায়, একটু খানি হলেও তোমার বা পাঁজরখানি কেঁপে উঠবে।


তোমার আগমনের রাস্তায় বিছানো থাকবে মেঘে ঢাকা ছায়া,
বুক ভরা শূন্যতা নিয়ে দাড়িয়ে থাকবো করবো অপেক্ষা।
জ্বালিয়ে রাখবো হাজার কোটি আলো জোনাকির,
হাত দু’খানি বাড়িয়ে বলবে তুমি,ধর তোমার সন্ধ্যা প্রদীপ।


এই অন্তরে সারাক্ষন গুন গুন করে তোমার নাম,
তোমাকে নিয়ে মনের অজান্তে গাইতে থাকি বিষাদের গান।
ভুলতে পারিনা, নির্জন  দুপুরে, গাছের ছায়ায় বসে,
চোখের ভাষায় কথা বলা, একটা গোলাপ আদান প্রদানে।


ভোরের সূর্যদয় যখন তার রক্তিম আলো দেয় ঢেলে,
বিষন্নতায় ছেয়ে যায় মন, আনন্দের কথা যাই ভুলে।
তোমায় ভালবেসে হৃদয় করেছিলাম উজাড় ,
চেয়ে ছিলাম জড়িয়ে ধরে,ফেলবো দু’ফোটা চোখের জল ।


কোকিলের কুহু কুহু ডাকে হৃদয় চঞ্চল হয়ে ওঠে ,
বসন্ত এসে গেছে,এমনি একদিনে দেখা হয়েছিল
শিমুল গাছের নীচে, তোমার আমার সাথে ।
সেদিন ছিল মেঘলা আকাশ,মেঘলা দুপুর, বাতাসে ছিল ভালবাসার সুর ।


তুমি বলেছিলে পরবে তুমি লাল রঙ্গের জামদানী  শাড়ী ,
কন্টাস্ট বেল্লাউজ, হাতে দেবে রেশমী চুড়ি।
শোনো, কপালে ছোট একটা কালো টিপ পরিও,
যদি পার খোঁপাতে বেলীফুল জড়িও ।


তোমার কথা রাখতে গিয়ে গুনেছি প্রহর ,
এক ঝলক দেখার জন্য সেজেছি বারংবার ।
ইচ্ছে হয় মাঝরাতে পূর্নিমা চাদের সাথে বলি অভিমানের কথা ,
ভরিয়ে দাও, তোমার জ্যোৎস্নায় ,ঘুঁচিয়ে দাও আমার মনের সকল ব্যাথা ।


আমার জীবনটা জুড়ে আছে সাদা কালো মেঘে ঢাকা ,
চেয়ে আছি আমি তোমার আগমনের অপেক্ষা ।
থমকে যাবে তুমি ,বৃষ্টি ভেজা দুপুর বেলা ,
সেদিন হবে আমার ভোরের আলোর সাথে কথা বলা ।


অনুভবে যখন তোমাকে দেখি, দাঁড়িয়ে আছো নিরবে,
সাদা পাজামা পাঞ্জাবী পরে, পশমী চাঁদরখানা জড়িয়ে আছো আধো আবৃত করে ।
ধীর পায়ে ঝড়ে পড়া পাতার উপর দিয়ে মড়মড় শব্দ করে,
আমার সংবিৎ ফিরে, ঝরে পড়া পাতার মউ মউ গন্ধে ।
তুমি জড়িয়ে রেখেছো আমায় তোমার দু’বাহুর আলিঙ্গনে ।