তোমায় নিয়ে আর কোন দিন লিখবনা, গান, কবিতা-কাব্য।
তোমায় খুঁজবো না, আর কোন দিন, নদী, সাগর বা অরণ্যে।
স্রোত বিহীন নদীতে পালতোলা নৌকায় ভেসে বেড়াবো।


তোমার জন্য যে শূন্যতা আছে আমার হৃদয়ে,
তা নিয়ে আমি বেঁচে থাকবো হাজার কোটি বছর ধরে।
মেঘ শূন্য করেছো তুমি, আমার হৃদয় খানি।
এ হৃদয়ে আর ফুটবে না ,ফুল কুয়াশায় ভিজবো না আমি।


ভুলতে চেয়েও পারিনা ভুলিতে বারবার পরে মনে,
গাড়ীর জানালা খুলে, বসেছিলাম দু’জনে চুপটি করে।
মাইলের পর মাইল , চলছে গাড়ী, ঠিকানা নাই বুঝি কোন খানে,
আমরা দু’জনে বসে ছিলাম পলক ছাড়া নয়নে।


ভাষা ছিলনা, ছিল শুধু নিরবতা, ছিল শূন্যতা,
ছিল হৃদয়ের উষ্ণতা, চোখের ব্যাকুলতা।
তোমার নিঃশ্বাসের শব্দ ছিল, হৃদয়ের আকুলতা ছিল।


সেদিন  দু’জনে ফেলেছিলাম দু’ ফোটা অশ্রুজল।
জানিনা, সেটা কী আনন্দের  নাকি, বিরহের।


সেদিন আকাশে ইলশেগুড়ি বৃষ্টি ঝড়ছিল,
আলতো হাতে আমায় মেঘের আড়াল করেছিলে,
তোমার স্পর্শে বৃষ্টি ভেজা শরীর আবেগময়... ”হয়েছিলো”।
ইলশেগুড়ি বৃষ্টিকে অনুরোধ করেছিলে,বাড়াও তোমার সময়।
ঐ বৃষ্টি ভেজা শরীরের ঘ্রাণ ভরিয়ে দিয়েছিল ভালোবাসার উষ্ণতায়।