“মেরিনকাব্য ৪”


একার সংজ্ঞা কি?__আমি।

আকাশ-মর্ত্য ব্যাপৃত অসীম অনাদি একাকিত্ব;
মহাকাশের স্তব্ধতা, শ্বাস-প্রশ্বাসহীন নিগূঢ় কালো,
৪৫ বছর! "লাবণ্য-বনলতার" মতো নারী-প্রেমহীন
ঈশ্বরকৃত অভিশ্বপ্ত যে জীবন,_তাকেই বলে একা।


একার সংজ্ঞা কি?,__তুমি।

উত্তাল, উদ্ভাসিত, প্রেম-হিল্লোলে প্লাবিত,
ছঁক কেটে স্বপ্ন বোনার কালে,
মৃত্যু এসে ডেকে নিয়ে গেলো তাকে;
সবকিছু চুরমার, বাকি পড়ে রইল যে নীরবতা,
                                      তাকেই বলে একা।


ঈশ্বরের ক্রুরতায়, বয়ে নিতেই হবে তবু বেঁচে থাকার দায়;
রাগ-ক্ষোভ, অভিমান আর অবরুদ্ধ কান্নায়।


(সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৬)


----------------------------------------------------------------


“মেরিনকাব্য ৫”


জেলারদের চোখের শাসনে__চুল বেঁধে তুমি সুবোধ রমণী!
আমি ভাবলাম, ঠিক আছে;
কিছুক্ষণ না হয় নাই দেখলাম, তার দীঘল চুলের সুষমা;
সভা ভাঙ্গতেই, ওপরের মন্দিরে উঠে দেখি!
নয় খুপরি তিন জানালার উত্তাল পবনে,
ভাসিয়ে দিয়েছে কালিদাসী কুন্তল_ হাসছে খিলখিল;
কাছ ঘেঁষে দাড়িয়ে এক মুগ্ধ উপাসক!


ঘষেটি বেগম, এভাবেই যুগে যুগে জ্বালাচ্ছো কলিজা,.....কবিদের।


(সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৬)