ইসলাম ধর্মে মুসলমানের আল-কোরান-ই মূল,
কোরআন পড়ে শুধরাবে তারা জীবনের যত ভুল।


হাদিস মতে চলবে সবে প্রত্যেকে ভাই ভাই,
মিথ্যা বলার অভ্যাস যেন মনে না পায় ঠাঁই।


খোদার ভয়ে ইনসাব ভেবে অন্তর যার কাঁদে,
মানুষকে প্রতারনা করে ফেলবে নাকো  ফাঁদে।


সৎ মানুষই কর্মে রাখেন খোদার প্রতি আস্থা,
চলার পথে খুঁজে নেন, সকল অনুকূল রাস্তা।


ধর্মের নিষেধ অপকর্মে লিপ্ত রয়েছে যে জন,
শান্তির ধর্মের নীতিমালা করে যাচ্ছে লঙ্গন।


উত্তম চরিত্রের অধিকারী হলে মনটা থাকবে খাঁটি,
তাদের আদর্শে মুমিনের ঈমান হবে পরিপাটি।


লোভ-লালসা অন্যায় কাজে যার আছে খোদাভীতি,
সেসব মানুষের কর্মই জগতে হয়ে থাকবে স্মৃতি।


দুয়াললিন-যোয়াল্লিন সুন্নি-ওহাবি কেন এত পথ,
একটি আল-কোরআন তবে কেন, ভিন্ন ভিন্ন মত?


একত্ববাদে বিশ্বাস রেখে মুমিন নিল দ্বীনের দীক্ষা,
আলেমসমাজ দ্বিধা-বিভক্ত এটাই কি নবীর শিক্ষা?


ভিন্ন মতাদর্শে আলেমসমাজে গড়ে উঠছে ভিন্ন গোত্র,
সাধারণ মানুষ খুঁজে পাচ্ছেনা কোনটি আসল সূত্র।


ভেঙ্গে যাবে ভাতৃত্বের বন্ধন, কমে যাবে ঈমানের জোর,
ইবলিশের সহায়তায় ঈমানের ঘরে ঢুকে যাবে অসুর।


গবেষণামূলক কোরআন শিক্ষায় দূর করতে হবে বাঁধা,
মতপার্থক্যের ভেদাভেদ ভুলে মনকে করুন সাদা।


                             ---সমাপ্ত---
      (রচনাকালঃ-৩০/০৮/২০১৯)