বানিয়াচং এর কৃতি সন্তান নন্দী পাড়ার সুবীর নন্দী,
পয়ষট্টি বছর ভবে ছিলে তুমি, মায়ার জালে বন্দি।


সাবলীল কণ্ঠে প্রেরণা স্বরুপ শোনালে কত গান,
স্মৃতির পাতায় রয়ে গেলে তুমি, হয়ে চির অম্লান।


তুমি চলে যাওয়ায় সংগীত জগতে হলো, অপূরণীয় ক্ষতি,
মধুর কণ্ঠের গানে পেয়েছ সম্মান, একুশের স্বীকৃতি।


টাকার প্রতি লোভ ছিল না তোমার, ছিল না অভিমান,
গান গেয়ে শুধু কুড়াতে চেয়েছিলে মানুষের সম্মান।


কণ্ঠ শিল্পী হিসাবে মানুষের মনে করে নিয়েছ স্থান,
তোমার প্রতি দেশবাসীর ভালোবাসা থাকিবে অফুরান।


স্ত্রী-পূরবীর হাতে রান্না করা শুঁটকি মাছ ছিল তোমার প্রিয়,
বলেছিলে এ খাবার, বাসায় ফিরিলে আবার, রান্না করে দিও।                            


এটাই যে জীবনের শেষ খাবার জানত না সহধর্মিণী,
জন্মের তরে চলে গেলে ওগো! কেহ কখনো ভাবেনি।


যদি জানত তুমি যে চলে যাবে মায়ার বন্দন ছেড়ে,
কোমল মনকে কঠিন ভাবে বাঁধিত প্রেমের ডোরে


তুমি চলে গেলে শোক সাগরে রেখে, পরিবার পরিজন,
তোমার আত্মা শান্তিতে যেন থাকে গো সারাক্ষণ।
                              
                           --সমাপ্ত--
             (রচনাকালঃ-১১/০৫/২০১৯)