প্রাণেরতরী-৪২


ঠাকুর বিশ্বরাজ গোস্বমী


আসে রাত দূরান্ত নেই যার,
ভাবনা ভবিনা কখনো তার,
মানিনা কখনো আমি হার,
পেয়ে জীবনের ক্ষরস্রোতো,
প্রাণেরতরী বেয়ে চলে যাই,
আনন্দ সাগরে সাথীকে পাই,
পিছন দিকে ফিরে  দেখি নাই,
করি আমি ভবে সুখেরব্রোতো।


ইচ্ছার হাটে বেচাকেনা করে,
তরীখানি প্রায় রেখেছি ভরে,
দুপুরটা আজ গিয়েছে সরে,
অদূরাগত ঘোর সাঁঝবেলা,
মলিন দিনটার অনুরাগে,
কালোআলো দুই আঁখিতে লাগে,
দেখিনা আমি দু'চোখের আগে,
যাদের নিয়ে করি আমি খেলা।


প্রাণেরতরী কার প্রাণ দান,
গাইনি কখনও তার গান,
করি আমি মনেরসুখে পান,
নেশার সুধারাশি দ্রাক্ষারস।
তরীর মাঝে ছিলো মালামাল,
হারাই আমি এলে মধুকাল,
ভেঙে গেছে আজ তরীর হাল,
ইচ্ছার কাজে হয়ে আছি বস।


সাঁঝনার ঘাটে প্রাণেরতরী,
ডুবে যাবে বুঝি ভয়েতে মরি,
সব ত্যাগ করে তোমাকে স্বরি,
পাই আজ একা যমের ঘ্রাণ,
বুঝেছি তুমি স্রষ্টা আদি মূল,
কূলহারার আছো তুমি কূল,
ক্ষমা কর প্রিয় সকল ভুল,
করো তুমি প্রাণেরতরী ত্রাণ।