ফিরে এসো বন্ধু আমার
      ✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য


আজও দিন শেষে অস্তায়মান সূর্যের রক্তিম আভা প্রতীচী অন্তরীক্ষ থেকে যখনি ডাক দেয়,
আমার একাকীত্ব, অতৃপ্ত, কঠিন হৃদয়ের দুয়ার যেন এমনিতেই খুলে যায়..।
বসন্তের আবির মাখা যতটা আনন্দের, ততটাই আনন্দিত মনে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আসি সঙ্গ প্রাপ্তির আশায়।


ষড়ঋতুর দেশে কালের প্রত্যাবর্তনে আকুল দৃষ্টিতে ধরা দেয় যত চেনা অচেনা ফোটা ফুল, বাড়িয়ে দেয় ধরণীর সুন্দরতা।
সুগন্ধ বিকাশিত হয় যত বাতাসে, আমার জাগ্রত অন্তর প্রেমে মোহিত হওয়ার স্বপ্নে খেলা করে।
যদিও সময়ের অন্তিমে সবকিছু ঝরে যায় মৃত্তিকায়!
যে রূপ ঝরে গেছে আমার প্রেম, ভালোলাগা,
ভালোবাসা,
এবং হৃদয়ের কোমলতা অনুভব।


তাই ঝরা ফুলে সাজানো পথে হেটে যেতে-যেতে খুঁজি,
স্মৃতি মিশ্রিত অতীত জীবন।
কৈশোর পেরিয়ে যৌবনের প্রারম্ভে, পথ ভুলে যে করেছে অন্তরে  প্রবেশ--
জানি সে তো দুর্লভ!
আর দুর্লভ  ভালোবেসে জয়ের প্রচেষ্টায়, দীর্ঘ সাধনায় মগ্ন থেকে শুকিয়ে গেছে স্বপ্নে সজ্জিত জীবনের নন্দন কানন।


ওগো তাই ফিরে এসো শরদ শিশিরে ভেজা চেনা পথ ধরে,শিউলি ফোটা বনে --অতীত ভালোবাসার ঠিকানায়।
নিঃসঙ্গ, একাকীত্ব, অপূর্ণ প্রেমে হারিয়ে যাচ্ছে অস্তিত্ব;
হারিয়ে যেতে চাই চিরতরে দূরে--বহুদূরে।
চঞ্চলতা, ধৈর্য হীনতা, উন্মাদ বেশে আর কত খুঁজবো তোমায়?
আর কত তোমার দুয়ারে মাথা নত করে অপেক্ষা করলে শুধু একটিবার পাবো দর্শন ?


জানিনা, আজও কিসের টানে দিন শেষে ছুটে যাই তোমার সন্ধানে!
অশ্রুসিক্ত আকুল নয়নে যদিও শূন্যতা---
তবু অন্তরে অমর প্রেম পূর্ণতা খোঁজে নির্জনে - রাত জাগা কল্পনায়, শিহরণে-  বিরহ ব্যথায়।



✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য
রচনাকাল, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ সাল, বাংলা-২ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার, সকাল ১০-৫৮ মিনিটে।
দাকোপ খুলনা, বাংলাদেশ।