উদ্বিগ্ন ধরা
    ✍উজ্জ্বল সরদার আর্য


পৃথিবী আজ রাজনৈতিক দহনে-দগ্ধ,
বিবাদ-বিদ্রোহ-কলহ-কুটিলতা হয়েছে প্রত্যহ সঙ্গী।
রাজ্যলোভ-ক্ষমতাবল-সম্পদের লালসায়
ক্ষমতাশালী মানুষ মরিয়া হয়ে ছুটছে।
আবার এর নাম দিয়েছে ওরা, দেশ সেবা-মানব সেবা।
কিন্তু মানুষে-মানুষে ভেদাভেদ-হিংসা-দ্বন্দ্ব-শান্তির নিদ্রা
কেড়ে নিচ্ছে এই রাজনীতি।


আর এর ভয়ানক আভাস পাচ্ছি আমার স্বদেশে।
এখন-এখানে মানুষ-মানুষকে ঘৃণা করে,
দল-বেদলে দ্বন্দ্ব করে--রাতদিন মরছে অসংখ্য মানুষ।
সমালোচনা, ঘাত-প্রতিঘাত, দখলদারি,
আর শত্রু হয়ে উঠেছে প্রত্যকে একে অপরের।
সামর্থ্য-ক্ষমতা ও শক্তির অপব্যবহার করছে মানুষ,
হত্যা-ভাঙচুর-পথ অবরুদ্ধ করছে,
করছে মিছিল-জ্বালাচ্ছে আগুন-নিরীহ জনতা হচ্ছে অসহায়।


আজ বাঁচার উপায় নাই, নাই মানুষ ঐক্যবদ্ধ-একতা!
দিকভ্রষ্ট জনতা কেবল লোভ-লালসায় মাতোয়ারা।
এখন কেউ শান্তি চায় না, চায় অন্যের প্রাণ-সম্পদ
লুট করতে,
দিনরাত যুদ্ধ-হানাহানি-সংগ্রাম-মৃত্যুর সাথে খেলতে।
এখন গৃহ শত্রুতে স্বদেশ ভরে গেছে, প্রতিক্ষণে এই রুক্ষ
ভূমিতে বোমা বিস্ফারণ হয়, হয় প্রলয়-বিধ্বংস,
অগ্নিকাণ্ডে অসহায় জনতা, দেশ হচ্ছে সর্বস্বান্ত।


আজ দেশী খাবার উৎপাদন বন্ধ,
বিদেশী খাবারের লোভে বেঁধেছে দ্বন্দ্ব,
বিদ্যুৎ গতিতে তাই বাড়ছে খাদ্যের দাম!
দিবস-রজনী ভয়ানক রুদ্ধশ্বাসে ছটফট করছে দেশ,
খাদ্য শূন্য হয়েছি গৃহহারা, হয়েছে আমার পথিকের বেশ-
ধুলা মাখা দেখে অশ্রুজলে লিখেছি ভিক্ষারী খাতায় নাম।


তবু স্বাধীনতা নেই, পথ অবরুদ্ধ রাজনৈতিক দলের
ধর্মঘট-মিছিল-আন্দোলনে।
তাই উদ্বিগ্ন আমি, পেটে ক্ষুধা, ওরা করছে হত্যা -
তবু বিচার নাই!
ক্ষমতা আর সামর্থ্যের মিলনে জয়গান কেবল ওদের।
ওরা সত্যি কি দেশ ভালোবাসে,
না ওদের ভালোবাসার প্রকাশ এই রাজনীতি?
যার দ্বারা স্বদেশ-পৃথিবী ক্ষতবিক্ষত হচ্ছে,
মনুষ্যত্ব ভুলে সকলে হিংস্র হয়ে উঠেছে।


তাই আজকের আন্দোলন হক রাজনীতির বিরুদ্ধে,
সমাজে শোষণ কারী, যুদ্ধ কারী, লুট-অপহরণ-সম্পদ
চূর্ণবিচূর্ণ কারীর বিরুদ্ধে।
ক্ষুধার্ত নিরীহ জনতা শান্তি চায়,
সকলে মিলে দেশ গড়তে চায়, চায় একটু নিদ্রা,
চায় বাঁচার অধিকার।


✍-উজ্জ্বল সরদার আর্য
রচনাকাল ১১ ডিসেম্বর ২০২০ সাল,
বাংলা ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার।
দাকোপ খুলনা, বাংলাদেশ।