বিদায়ের কালে (ব্যঙ্গ)
বোরহানুল ইসলাম লিটন
==============//


মন বুড়িটা কাঁদছে একা
উঠোন বাতায় বসে,
দেখছে চেয়ে ঘরখানাটি
পড়ছে দেয়াল খসে।


ক’দিন আগে ঘরটা ছিল
রঙ্গে ঢঙ্গে ভরা,
দিন দুবেলা পেরিয়ে যেতে
ঘিরছে ঘুণের জরা।


খর বিহনে ঘরের চালা
ফেলছে দুখের শ্বাস,
চার দেয়ালে মন খেয়ালে
জীর্ণ ব্যধির বাস।


পাল্লা হীনে জানলা মনে
বিষন্নতার ঢেউ,
দুঃখ ভরা দোরের জরা
জানলো না তার কেউ।


শেষ বিদায়ে ব্যস্ত ধরা
বন্ধু স্বজন এসে,
বলছে কানে সঙ্গোপনে
ব্যঙ্গ মায়ায় হেসে।


চাচ্ছে কেহ  পাতিল হাড়ি
জানলা বা কেউ দোর,
খুলছে কেহ চালের বাতা
কেউ বা আশার ভোর।


নয়কো হেলা বিদায় বেলা
বলতে পাড়ার লোক,
নাকের জলে ভর বিকেলে
করছে নানান শোক।


=================//
পাঁচুপুর, আত্রাই, নওগাঁ।
১০/০৪/২০২০ইং।