ওরে ও দেশের মানুষ
        ভাঙবে কবে নিদ্রা তোদের
ওরে ওঠ,দেখরে চেয়ে
        লুটছে তোদের ভারত মায়ের।।
ওরে আজ জাতীর তরী  
          বাইছে কারা,দুর্ভাগারা।
চোরে-চোরে মাসতুতো ভাই
        যারাই শাসক,শোষক ওরা।।
কারে কয় রাজনীতি আজ
          দুর্নীতি বা কারেই বলে।
মিলে সব আজ একাকার
         ভিতর-বাহির ওপর-তলে।।
কাল ছিল যার মাথায় লেখা
            লক্ষ কোটির দুর্নীতিবাজ।
এলে সে শাসকদলের ছাতার তলে
         পাপ মুছে সব সাফ হলো আজ।।
দেখ আজ চলছে কারা
          তীর্থে ওরা লেজুড় নেড়ে।
ওরে সেই বিড়ালছানা
        একশো চুহার আহার করে।।
কে পশু কেবা মানুষ  
         যায় না বোঝা কদাচারে।
পথে-ঘাটে একলা পেলে
       একশো শিয়াল ঝাঁপিয়ে পড়ে।।
বল তোর জাতির কি নচেত্
            বলতে হবে হুক্কা- হুয়া।
নয়তো জান যাবে তোর
          বৃথাই প্রাণের ভিক্ষা চাওয়া।।
ওরা মারছে মানুষ পশুর লাগি
           বিচার-আচার নেইকো তারি।
বরং ওরাই নাকি ভক্ত দেশের
           ভক্তি কি আর?গলা বাজারি।।
ওসব দেশপ্রেমের ভাঁওতাবাজি
            দেশের নাহি, ভক্ত নেতার।
মায়ের চেয়ে মাসির দরদ
               দেখছি বেশি ভন্ড বাবার।।
কেউ স্লোগান দেব দেবতার
                      মন্ত্রালয়ে উচ্চস্বরে।
কেউবা বলে 'বন্দে মাতার'
                      বলতে হবে বজ্রস্বরে।।
কেউ চেল্লায় 'জয় হো নেতার'
              এ কোন্ জাতীর পাগলা খানা।
কেউ বা বলে 'জয় ভগবান'
                 যে যার মত কেউ কারো না।।
এই কি রে তোর ভারত মায়ের
                     স্বপ্ন ছিল দেশের তরে।
ধর্ম নিয়ে রাজনীতি আর
                      বর্ণভেদে বিবাদ করে।।
ওরে ও দেশের মাটি সাক্ষী তুমি
                     শহীদ যারা এই মাটিতে।
বৃথাই ওরা দেয়নি রে খুন
                    এমন ভারত দেশ গঠিতে।।