আমি কাঁঠালচাঁপা হয়ে মাঠের ওপারে
আত্মগোপন করব একদিন।
তখন পৌষের নীল কুয়াশায় ঘেরা রবে চারপাশ।
সেদিন আমার বুকে দুটি শালিক  
ঠোঁট গুঁজে  খুঁজে নেবে আপনের সন্ধান।
এরা  ফিসফিস করে গাইবে গান
পালক মেলে বুকের ওমে;
একের ভেতর মুখ লুকাবে দুজন।

পাশে শ্যাওলার মলিন মুখে পুকুরে কচুরিপানা
বেগুনী আভা ছড়াবে চারদিকে।
ঠাণ্ডা বাতাসে দুলতে থাকবে কিছু ছোট ছোট পোকা
উড়াউড়ি করবে লতানো কলমিলতায়।
পানিতে পোনামাছগুলো সারি বেঁধে
কোরাস গাইবে সেদিন।

আমি বুক ভরে স্বাদ নেব প্রকৃতির মায়াবী জোছনার
নদীর উপরে নড়বড়ে বাঁশের সাঁকো,
জোছনায়  তার ছায়া এঁকেবেঁকে যাবে নদীর জলে
চাঁদ  বার বার লুকোচুরি খেলবে সেদিন।
এই শীতে ঝরে পড়বে আমার হলুদ পাতা,
পানিতে ভেসে যাওয়া পিঁপড়ের দল
নিরাপদ আশ্রয় খুঁজে নেবে
আমার হলুদ খয়েরী পাতায়………….