কত দিন হয় ! আসেনি জোয়ার, লাগেনি পালে হাওয়া,
ঢেউ থেমে গেছে, চরের গোঁড়ায়, কাশফুলে হয়ে ছাওয়া।


বেঙ্গাচি কতক, জলশেওলায়, ডুবে ডুবে উঠে ভেসে,
কালো রংধারী, মাঝ নদী জল, কচুরিপানার রসে।


দীঘল চুলে, বিলি কেটে দিতে, উড়েনা খোঁপায় চুল,
এ নদীর পারে, কৃষ্ণচূড়ায়, গায়নিকো বুলবুল।


জোড়ায় জোড়ায় ক্ষয়ে গেছে, শত সখের সপ্তডিঙ্গা,
দুই কূল আর সাজে না মেলায়, বাজে না বেদের শিঙা।


ছাতার মতো বটতল, তটে, জিরাতে আসে না কেউ,
শিকড় শুকানো ঘাসে, ধূসরিত, সমতল মাঠ-ছেউ।


শীতল মায়ায় পথিক, রাখাল আর ভাটিয়ালি গান,
এ নদীর কথা, ভুলেছে সবাই, আনমনে অভিমান।


পান খেয়ে, লাল পিক ফেলা নদী, হাসে তার ফাটা বুকে,
সান্ত্বনা পায়, গোধূলিবেলায়, হারানো দিনের শোকে।