পৃথিবীর ঐ পারে তাকে আমি দেখেছি।


সে যে নয়নের জল;আকাশের কাজল।


এ পৃথিবীর পরে যত রং গায় সব যে তারই কথা বলে।


আমি দূর, দূরান্তে, অজান্তে ঘুরিব শুধু তাহারই তরে।


সূর্য, চন্দ্র, নক্ষত্র সব এক হয়ে তার গান গাইবে।


পৃথিবীর সব রং একাকার হয়ে আঁখির জলে ভাসিয়া চলিবে এক "গহীন" দেশে।


কমলালেবুর পাতার ফাঁকে ফাঁকে ঝিঁ ঝিঁ পোকারা ডাক দিয়ে উঠিবে, বলবে আমরা শুধু সে গান গাই যে গানের তরে এক নন্দিতা নারীর গোপন অভীপ্সা লুকায়িত থাকে।


আকাশে বাতাসে যত জল, রং সব একাকার হয়ে আকাশের নীহারিকায় এক ধূলিপোকা হবে।